ইতিহাস-

মরহুম মফিজ উদ্দিন খানের কাছ থেকে স্কুলের জন্য প্রতিশ্রুত জমি বুঝে পেতে বিলম্ব হচ্ছিল বিধায় ২রা জানুয়ারী ১৯৬৮ বোনকোলা হাটের কয়েকটি দোকান ঘওে স্কুলের কাজ শুরু করা হয়। প্রায় মাস তিনেক হাট ঘরে স্কুল চলার পর মরহুম মফিজ উদ্দিন খানের কাছ থেকে স্কুলের জন্য প্রতিশ্রুত জমি বুঝে পেয়ে ঐ বছরেরই মার্চ মাসে টিনের ঘর নির্মান করে ছাত্র-ছাত্রীদেও পাঠদান কার্যক্রম শুরু হয়। আমাদের শ্রদ্ধাভাজন রড় ভাই মরহুম জোয়াদুল হক, হারুন-উর-রশিদ সাহেব ও মরহুম আব্দুর হাকিম সাহেবের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় স্কুল সরকারী মঞ্জুরী প্রাপ্ত হয়। অত:পর ১৯৬৯ সালের প্রথম দিকে জনাব হারুন-উর-রশিদ ও তার বন্ধু রিয়াসৎ উল্লাহর সহযোগিতায় টঘওঈঊঋ হতে ১৫,০০০ ডলান মূল্যের বৈজ্ঞানিক যন্ত্রপাতি সংগ্রহ করেন।

 

আমাদের প্রতিষ্ঠিত এই নতুন প্রতিষ্ঠানে যে সকল শিক্ষক নামমাত্র বেতনে পাঠদান করে আমাদের সহায়তা করেছেনতারা হলেনঃ জনাব আলতাফ হোসেন (ঢাকায় থাকেন), জনাব আব্দুর কাদের (ঢাকায় থাকেন), জনাব নওশের আলী (সাবেক উপ-পরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষ, রাজশাহী অঞ্চল), মরহুম আব্দুর সাত্তার (ক্ষেতুপাড়ার বাসিন্দা ও সাবেক সম্জ কল্যান কর্মকর্তা, সুজানগর) জনাব আব্দুল মালেক (ক্ষেতুপাড়ার বাসিন্দা ও অবসরপ্রাপ্ত প্রাইমারী শিক্ষক ), জনাব শাহজাহান আলী ( চলনার বাসিন্দা, এখন প্রাইমারী শিক্ষক)জনাব মোতাহার হোসেন (অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক বোনকোলা উচ্চ বিদ্যালয় ) এবং মৌলভী আবুল হোসেন খান (এখন তহশীলদার) ।

 

এবার বিদ্যালয়ে কলেজ শাখা খোলার পালা। ছেলে মেয়েদের সাতবাড়ীয়া বা সুজানগর কলেজে গিয়ে উচ্চ শিক্ষা লাভ করা কষ্টকর বিধায়তাদেও অনেকই লেখাপড়া ছেড়ে দেয়। এরুপ বাস্তব অবস্থার প্রেক্ষিতে বোনকোলা ও এর আশপাশের গ্রামের বাসিন্দাদেও আন্তরিক প্রচেষ্টায় ১৯৯৮ সালে কলেজের শিক্ষা কার্যক্রম চালু হয়। আজকে সাফল্য জনক ভাবে বোনকোলা স্কুল এন্ড কলেজ স্বমহিমায় উদ্ভসিত।

Our School Field